‘ফিলিস্তিনিরা বিশ্ব শাসন করবে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ অক্টোবর ২০২৩, ০৬:৪৪ পিএম


‘ফিলিস্তিনিরা বিশ্ব শাসন করবে’

 

লমান ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘর্ষের মধ্যে হামাস কমান্ডার মাহমুদ আল-জাহারের একটি ভিডিও বার্তা নিয়ে আবারও বিশ্বব্যাপী আলোচনায় ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। হামাস কমান্ডার তার ভিডিও বার্তায় বলেছেন, পুরো বিশ্ব চলবে হামাসের শাসনের অধীনে। আর ইসরায়েল হলো তাদের প্রথম টার্গেট।
 

সামাজিকমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওর বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) জানায়, ইসরায়েল সরকার যখন হামাসকে দুনিয়া থেকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে, তখন তিনি এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।
 

ভিডিও বার্তায় হামাস কমান্ডার মাহমুদ আল-জাহার বলেন, ৫১০ মিলিয়ন কিলোমিটারের এই পৃথিবী নামের গ্রহ এমন একটি ব্যবস্থার অধীনে আসবে, যেখানে থাকবে না কোনো অবিচার, নিষ্পেষণ, হত্যাকাণ্ড। ফিলিস্তিনিসহ আরব দেশগুলো যেমন লেবানন, সিরিয়া, ইরাক ও অন্য দেশগুলোর বিরুদ্ধে চালানোর মতো কোনো অপরাধ থাকবে না।

 

তার এই ভিডিও প্রকাশ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, হামাস হলো দায়েশ (আইএস)। তাদের দুনিয়া থেকে ধ্বংস করে দেব। হামাসের বিরুদ্ধে তাদের যুদ্ধ অব্যাহত থাকবে।
 

চলমান সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন ইসরায়েলি সেনা ও বেসামরিক কিছু মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে হামাস।

 

তারা হুঁশিয়ারি দিয়েছে কোনো সতর্কতা ছাড়া গাজার একটি বাড়িতে একটি হামলা হলে, তার বিপরীতে একজন করে জিম্মিকে হত্যা করা হবে। তবে এখন পর্যন্ত জিম্মি হত্যার কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। যুদ্ধ চালিয়ে নিতে ইসরায়েল গঠন করেছে জরুরি ঐকমত্যের সরকার। এর প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। মন্ত্রিপরিষদে রয়েছেন সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টজ।

 

ইসরায়েলে হামাসের নজিরবিহীন হামলার জবাবে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় পাল্টা হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল। পাঁচ দিন পার হলেও এখনো সেখানে ইসরায়েলি বিমান হামলা চলছে। এরই মধ্যে ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়েছে। এমন থমথমে পরিস্থিতিতে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে এক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন গাজার একটি হাসপাতালের রিকনস্ট্রাকশন সার্জারি বিভাগের প্রধান মাহমুদ মাতার। সাক্ষাৎকারে তিনি অবরুদ্ধ এই উপত্যকার সবশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন।

 

মাহমুদ বলেছেন, হাসপাতালে এত পরিমাণ আহত মানুষ এবং মরদেহ আসছে যে, তাদের সামাল দিতে আমাদের পুরোপুরি হিমশিম খেতে হচ্ছে। হাসপাতালে এমনও মরদেহ আসছে যেগুলো টুকরো টুকরো অবস্থায়। আমি একজন শল্যচিকিৎসক। এরপরও এই দৃশ্য আমি সহ্য করতে পারছি না।

 

এদিকে গাজায় ইসরায়েলি হামলায় গত পাঁচ দিনে নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়েছে। এদের মধ্যে অন্তত ২৬০ শিশু রয়েছে। গাজায় ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আলজাজিরা জানিয়েছে, ভূখণ্ডটিতে ইসরায়েলের বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা নিহতের সংখ্যা এক হাজার ৫৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে অন্তত ২৬০ শিশু নিহত হয়েছে। এ ছাড়া আহত হয়েছে আরও ৫ হাজার ১৮৪ জন মানুষ।

 

এদিকে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী বলছে, হামাসের হামলায় ইসরায়েলে অন্তত ১২০০ জন নিহত এবং দুই হাজার ৮০০ জন আহত হয়েছে।

 

গত শনিবার সকালে ইসরায়েলে ‘অপারেশন আল-আকসা ফ্লাড’ নামে নজিরবিহীন হামলা চালায় ফিলিস্তিনির স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। জবাবে পাল্টা হামলা শুরু করে ইসরায়েল। যুদ্ধের পাঁচ দিন পার হলেও এখনো দুপক্ষের লড়াই চলছে। ফলে দুই দেশেই যুদ্ধ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

Ads