ফের নির্বাচনে প্রার্থী দেব!

বিনোদন ডেস্ক

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:৩৬ এএম


ফের নির্বাচনে প্রার্থী দেব!

ছবি- সংগৃহীত।

 

ল আর টলিউড স্টার দেব নিয়ে যাবতীয় জল্পনা, গুঞ্জনের অবসান। তিনি দলেই আছেন, থাকবেন। এনিয়ে কোনও বিভ্রান্তি নেই। এমনই খবর ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে। নতুন করে কোনও জটিলতা তৈরি না হলে ভারতে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন দেবই।
 

শনিবার বিকালে ক্যামাক স্ট্রিটে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর সেখান থেকে বেরিয়ে সোজা কালীঘাটে গেলেন দলের তারকা এমপি দেব। সেখানে দলীয় প্রধান ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে কথা বলেছেন বলে খবর।

 

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি ঘাটালের তারকা এমপিকে নিয়ে ওঠা নানা জল্পনার অবসান হয়েছে শনিবার। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তার সাক্ষাতে জট কেটেছে। স্পষ্ট হয়েছে, দেব দলেই থাকছেন। এনিয়ে কোনও জল্পনা নেই। তৃতীয়বারের জন্য লোকসভা ভোটে লড়বেন তিনি, তা প্রায় নিশ্চিত।

 

তৃণমূল নেত্রীর প্রতি নিজের ভালোবাসা, শ্রদ্ধার কথা বারবারই বলেন দেব। সাম্প্রতিক জটিলতার মাঝেও তিনি বলে আসছিলেন, তার একার সিদ্ধান্তে কিছু হবে না। তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে সব ঠিক হবে। শনিবারের বৈঠক, সাক্ষাতে বোঝা গেল, কোনও জট নেই। ‘দিদি’র সঙ্গে নির্বাচনী লড়াইয়ে প্রস্তুত নায়ক।

 

ফিল্মি কেরিয়ার বা রাজনীতির জগত – যে কোনও একটা বেছে নেয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন টলিউড নায়ক দেব। সিনেমা জগতে আরও প্রতিষ্ঠিত হতে তিনি প্রচুর পরিশ্রম করছেন। নিজের প্রযোজনা সংস্থার মাধ্যমে বছরে একাধিক সিনেমা বানানোর মতো চাপ রয়েছে। সেক্ষেত্রে ২ বারের এমপির কাছে রাজনীতি খানিকটা বাড়তি চাপ হয়ে যাচ্ছিল বলেই ঘনিষ্ঠ সূত্রে শোনা গিয়েছে। তার উপর এলাকায় দলের আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব নিয়ে চিন্তিত ছিলেন তারকা এমপি। শেষবার জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে দলনেত্রী নিজে দেবের প্রশংসা করে প্রশ্ন তুলেছিলেন, ”দেবকে কারা ডিসটার্ব করছে?”

 

এসবের পরও গত সপ্তাহে ঘাটালের তিনটি প্রশাসনিক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন দেব। তা নিয়ে বিস্তর গুঞ্জন শুরু হয়। তবে দায়িত্ব ছেড়ে তিনি দলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াচ্ছেন? রাজনীতির আঙিনা থেকে ধীরে ধীরে সরে যাওয়ার পদক্ষেপ? এসবের মাঝেই সংসদে বাজেট অধিবেশনের শেষ দিন যোগ দিয়ে দেব জানিয়েছিলেন, পরেরবার টিকিট পাবেন কি না, তা নির্ভর করে তৃণমূল সুপ্রিমোর সিদ্ধান্তের উপর। এর পরই তাকে ক্যামাক স্ট্রিটের অফিসে ডেকে পাঠান দলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার সেখানে কথা বলার পরই জট কাটল। সব ঠিক থাকলে ফের প্রার্থী হতে রাজি হয়েছেন দেব।

Ads