বিপিএম সেবা পদকে মনোনিত হয়েছেন জয়পুরহাট পুলিশ সুপার নূরে আলম

ওমর আলী বাবু

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৫:৩৭ পিএম


বিপিএম সেবা পদকে মনোনিত হয়েছেন জয়পুরহাট পুলিশ সুপার নূরে আলম

জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম।

 

য়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম ‘বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম)-সেবা’ পদকে মনোনিত হয়েছেন। ২০২৩-২৪ সালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ পুলিশ সদস্যদের এই পদক দেওয়া হয়ে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায়  সম্প্রতি ২২ ফেব্রুয়ারী  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের এক  প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ তথ্য পুলিশ সদর দফতরকে জানানো হয়।

 

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন । প্রথমে রাঙ্গামাটি সদর সার্কেল, কলাপাড়া সার্কেল পটুয়াখালী, শিবালয় সার্কেল মানিকগঞ্জ, সহকারী পুলিশ কমিশনার, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ, ময়মনসিংহ জেলা ও নারায়ণগঞ্জ জেলায় কর্মরত ছিলেন।পরে পুলিশ সুপার হিসেবে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি-ডিবি এবং বর্তমানে পুলিশ সুপার হিসেবে জয়পুরহাট জেলায় কর্মরত আছেন।

 

দেশের সীমান্তবর্তী জেলা জয়পুরহাট। এই জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্বরত আছেন মোহাম্মদ নূরে আলম। যার দক্ষতা ও সাহসিকতা দিয়ে বদলে গেছে জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি। মাদকের বিরুদ্ধে ঘোষণা করেন জিরো টলারেন্স নীতি। তার নেতৃত্বে টানা ৮ মাস সারাদেশের মধ্যে ওয়ারেন্ট তামিলে জয়পুরহাট জেলা প্রথম স্থান অধিকার করে চলেছে।

 

মাদক উদ্ধারে সারাদেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে জয়পুরহাট জেলা পুলিশ। পুলিশ সপ্তাহ ২০২৩ উপলক্ষে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে মাদক উদ্ধারে জয়পুরহাট জেলা দ্বিতীয় স্থান অর্জন করায় বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলমের হাতে সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট তুলে দেন। জানা গেছে, পুলিশ সুপার হিসেবে জয়পুরহাটে মোহাম্মদ নূরে আলম যোগদান করার পর থেকে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে জেলার বিভিন্ন এলাকায়, গুরুত্বপূর্ণ সড়কে, স্থানীয় থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবির টিমের নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রেখেছিলেন।
 

এর ফলে মাদক উদ্ধারসহ মাদক কারবারি ও সেবনকারীদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে মাদক উদ্ধারে সারা দেশের মধ্যে জয়পুরহাট জেলা দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। জয়পুরহাট জেলায় তিনি ইতিমধ্যে মানবিক পুলিশ সুপার হিসেবে পরিচিত। প্রচন্ড  শীতে গরীব অসহায় মানুষের কথা ভেবে  তাদের মাঝে  তিনি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন। এছাড়াও অনেক মানবিক কাজ তিনি করেন। যুব সমাজকে মাদকের করাল গ্রাস থেকে রক্ষা করতে তিনি ফুটবল টূর্ণামেন্ট, কাবাডি, আন্তর্জাতিক দাবা টূর্ণামেন্ট এবং ম্যারাথন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন। এই ব্যাতিক্রমী আয়োজন গুলোর মাধ্যমে জেলার যুব সমাজকে মাদক এর হাত রক্ষা করছেন তিনি।

 

জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম জানান, জয়পুরহাট জেলা পুলিশ সবসময় পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করে যাচ্ছে এবং সবসময় করবে। ছোট জেলা হিসেবে অন্য জেলাগুলোর সাথে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এই অর্জন জয়পুরহাট জেলার জন্য বিরাট সম্মানের। জেলার সকল পুলিশ অফিসার ও ফোর্সরা আন্তরিকভাবে কাজ করেছেন বলেই এ অর্জন সম্ভব হয়েছে। 

 

 

Ads