o নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালনে ম্যাজিস্ট্রেটদের প্রতি সিইসির নির্দেশ o রাজশাহীতে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ, প্রচার-প্রচারণা শুরু o প্রশাসন ও আইসিটির প্রশিক্ষণে থাইল্যান্ড যাচ্ছেন কুতুবদিয়ার প্রধান শিক্ষক জহির o নড়াইলের দুটি আসনে ১২ প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন o শাহজাদপুরে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস পালিত

আজ সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ |

আপনি আছেন : প্রচ্ছদ  >  জীবনযাত্রা  >  বিষন্নতাকেই এখন সারা পৃথিবীর জন্য প্রধান রোগ

বিষন্নতাকেই এখন সারা পৃথিবীর জন্য প্রধান রোগ

পাবলিশড : ০৩/০৪/২০১৭ ১২:০৩:১৮ পিএম

।। অনলাইন ডেস্ক ।।

বিষন্নতাকেই এখন সারা পৃথিবীর জন্য প্রধান রোগ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটি জানায়, ২০১৫ সালে বিষন্নতায় ভোগা মানুষের সংখ্যা ছিল ৩২ কোটি ২০ লাখ, যা ২০০৫ সালের তুলনায় ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি। শুধু মানসিক অবসাদের কারণেই প্রত্যেক বছর সারা বিশ্বে ৮ লাখের বেশি মানুষ আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

ডব্লিউএইচওর সমীক্ষায় আরো বলা হয়, ২০১৫ সালের পর বিষন্নতা মানুষের সংখ্যা আরো বেড়েছে সন্দেহ নেই। এ প্রসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান মার্গারেট চ্যান বলেন, ‘এটা সম্ভবত প্রত্যেক দেশের জন্য একটি সতর্কবার্তা। ভাবার সময় এসেছে, কিভাবে মানসিক অবসাদগ্রস্তদের দ্রুততার সাথে সুস্থ করে তোলা যায়।’

ডব্লিউএইচওর সংজ্ঞা অনুসারে, যদি টানা অবসাদ বোধ করেন এবং যেসব কাজে আগে আনন্দ পেতেন তা এখন আর করতে উৎসাহ না পান তাহলে বুঝতে হবে আপনি বিষন্নতায় ভুগছেন। প্রতিদিনের সাধারণ কাজগুলো যদি টানা দুই সপ্তাহের বেশি করতে না পারেন, তবে তা মানসিক অবসাদের লক্ষণ হিসেবে গণ্য। এটা বুঝতে পারলে সাথে সাথে মানসিক চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার কথা বলেন তারা।

বিষন্নতার কারণে শুধু ব্যক্তি জীবনই ক্ষতিগ্রস্ত হয় না, এটা জাতীয় উৎপাদনশীলতায়ও প্রভাব ফেলে। তাছাড়া মানসিক এ সমস্যাটির কারণে নানা শারীরিক রোগও সৃষ্টি হয়। শুধু মানসিক সমস্যার ফলে বিশ্বব্যাপী আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় বছরে প্রায় এক হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাম্প্রতিক এই সমীক্ষার প্রধান শেখর সাক্সেনা বলেন, উন্নত দেশগুলোতেও মানসিক অবসাদগ্রস্ত প্রায় অর্ধেক মানুষ চিকিৎসা-বঞ্চিত থাকেন। উন্নয়নশীল দেশগুলোর অবস্থা আরো খারাপ। এসব দেশের ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ মানুষই চিকিৎসাসেবার বাইরে থাকেন।

সূত্র : গার্ডিয়ান