o বেলকুচিতে ভূয়া ডাক্তার করছেন অপারেশনের মত কঠিন চিকিৎসা o তরুন গীতিকার প্রিন্স মিলনের নতুন গান তুমি দুঃখ দিলে o সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় মাটি চাপায় শিশুর মৃত্যু o রোববার থেকে সারাদেশে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে o ভারতের তুমুল জনপ্রিয় মালালা হঠাৎ ভিলেন কেন?

আজ বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ |

আপনি আছেন : প্রচ্ছদ  >  সারাদেশ  >  আশুগঞ্জ সার কারখানা ১১৩ দিন মেরামতে চালু থাকলো মাত্র ৮ দিন!

আশুগঞ্জ সার কারখানা ১১৩ দিন মেরামতে চালু থাকলো মাত্র ৮ দিন!

পাবলিশড : ২০১৯-০৯-১১ ১৬:৪০:০৩ পিএম

।। এইচ.এম. সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। যান্ত্রিক ত্রুটিজনিত কারণে উৎপাদন বন্ধের পর টানা ১১৩ দিন ধরে মেরামতে চালু হলেও সচল থাকে মাত্র ৮ দিন!  প্রায় চার মাস সময় ধরে মেরামত শেষে চালু হওয়ার ৮ দিন পর কারখানায় ফের ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, দীর্ঘ চার মাস বন্ধের পর গত ২ সেপ্টেম্বর সোমবার কারখানাটিতে ইউরিয়া সার উৎপাদন শুরু হয়। কর্মচাঞ্চল্যতা ফিরে কর্মকর্তা-শ্রমিক-কর্মচারিসহ সংশ্লিষ্ট সকলের মাঝে। কিন্তু এই কর্মচাঞ্চল্যতার খুব বেশি স্থায়িত্ব হয়নি। মাত্র ৮ দিনের মাথাতেই গত ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার দিবাগত রাত থেকে কারখানায় ইউরিয়া সার উৎপাদন অাবারও বন্ধ হয়ে পড়ে। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে কারখানা কর্তৃপক্ষ। ইতিপূর্বে বিগত ১২ মে দুপুরে মেরামত কাজের জন্য কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিলো। এরপর থেকেই কারখানাটি সচল করতে চলতে থাকে মেরামত কার্যক্রম। অার তা চলে টানা ১১৩ দিন। এরপরই সচল হয়েছিলো দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী এই অাশুগঞ্জ সার কারখানা। এদিকে কারখানা বন্ধের কারণে প্রত্যেকদিন এক কোটি ৬৮ লাখ টাকা মূল্যমানের ১২শ' মেট্রিকটন ইউরিয়া সার উৎপাদন কার্যক্রম ব্যাহত হবে। তবে ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ থাকলেও কারখানার কমাণ্ড এরিয়াভুক্ত ছয় জেলায় সার সরবরাহে কোনোরকম ব্যাঘাত হবে না বলে জানানো হয়েছে।

টানা প্রায় চার মাস মেরামত কাজ চালিয়ে কারখানাটি চালুর পর মাত্র মাত্র ৮ দিনের মাথায় ফের বন্ধ হওয়া নিয়ে সচেতন মহলে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। নাম প্রকাশ না করার স্বার্থে কারখানা সংশ্লিষ্ট একাধিকজন বলেন, বিসিঅাইসি নিয়ন্ত্রিত দেশের বৃহত্তম এই কারখানাটি বন্ধ- চালু হবার বিষয়াসয় এখন অনেকটা হরহামেশা ব্যাপার। এসব নিয়ে রহস্য অার ধোয়াশা থাকাটা সাধারণ মানুষের কাছেও অনেকটাই স্পষ্টতর। এসবের কারণ অনুসন্ধান অাবশ্যক।

আশুগঞ্জ সার কারখানার মহা-ব্যবস্থাপক (কারিগরি) আব্দুল্লাহ আল বাকী জানান, 'চার মাস পর কারখানাটি চালু হলেও এর অ্যামোনিয়া প্ল্যান্টের স্টোরেজ কমে গেছে। স্টোরেজ বাড়ানোর জন্য সোমবার রাতে কারখানার ওই অংশটুকুর কাজ বন্ধ করে দেয়ার কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকে ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। তবে সবকিছু শেষে উৎপাদনে ফিরতে অন্তত তিন-চারদিন সময় লাগতে পারে। বর্তমানে কারখানায় ৭২ হাজার মেট্রিকটন ইউরিয়া সার মজুদ রয়েছে। যার কারণে কারখানার কমান্ড এরিয়া ভুক্ত এলাকায় সার সঙ্কটের কোনো সম্ভাবনা নাই।'