o ১ এপ্রিল থেকে ৬ মে পর্যন্ত সব কোচিং সেন্টার বন্ধ o রোয়াংছড়িতে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা সভা o লক্ষ্মীপুরে উপজেলা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ o চিকিৎসা নিতে এসে লাশ হয়ে ফিরল শিশু o খাগড়াছড়ি মাটিরাঙ্গায় টিএসএফ’র উদ্যোগে শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ

আজ সোমবার, ২৬ মার্চ ২০১৯ |

আপনি আছেন : প্রচ্ছদ  >  সম্পাদকীয়  >  সাংবাদিকের অন্যতম বাতিঘর গোলাম সারোয়ার

সাংবাদিকের অন্যতম বাতিঘর গোলাম সারোয়ার

পাবলিশড : ২০১৮-০৮-১৪ ১৬:০৮:১০ পিএম

।। আবু আফজাল মোহা. সালেহ ।।

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট তিনি মৃত্যুবরণ করেন সাংবাদিকের অন্যতম বাতিঘর, সাংবাদিক নেতা, মুক্তিযোদ্ধা লেখক-সম্পাদক গোলাম সারোয়ার। দৈনিক সমকালে সম্পাদক হিসাবে কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন বাংলাদেশি সাংবাদিকের অহংকার  শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব ও বিপুল জনপ্রিয় ও সদাহাস্যময়ী সাংবাদিক এ নেতা। গোলাম সারওয়ার ১৯৪৩ সালের ১ এপ্রিল বরিশালের বানারীপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। এই প্রথিতযশা সাংবাদিক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে’ মাস্টার্স করেন।

স¤পাদক গোলাম সারোয়ারের সাংবাদিকতার জীবন শুরু হয় ১৯৬৩ সালে দৈনিক পয়গম দিয়ে। এরপর তিনি যুক্ত ছিলেন দৈনিক সংবাদ, দৈনিক ইত্তেফাক, দৈনিক যুগান্তর, দৈনিক সমকাল এর মত শীর্ষস্থানীয় দৈনিকে। তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ২০১৪ সালে  দেশের সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য তাকে দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত করে। এছাড়া তিনি ২০১৬ সালে কালচারাল জার্নালিস্টস ফোরাম অব বাংলাদেশ (সিজেএফবি) আজীবন সম্মাননা এবং ২০১৭ সালে আতাউস সামাদ স্মারক ট্রাস্ট আজীবন সম্মাননা অর্জন করেন।  

সারওয়ার ১৯৬৩সালে দৈনিক পয়গমে যোগ দেন। এরপর ১৯৭১সালের ২৫মার্চ পর্যন্ত দৈনিক সংবাদে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধের পর বানারীপাড়া (বরিশাল) ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনে কিছুদিন প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োজিত ছিলেন। এরপর ১৯৭৩সালে দৈনিক ইত্তেফাকের সিনিয়র সহ-সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন। সেখানে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত প্রধান সহ-সম্পাদক, যুগ্ম-বার্তা সম্পাদক ও বার্তা সম্পাদক পদে কর্মরত ছিলেন। ইত্তেফাকে দীর্ঘ দুই যুগ কর্মরত থাকার পর ১৯৯৯ সালে দৈনিক যুগান্তরের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন। ২০০৫ সালে তাঁর উদ্দ্যোগেই প্রতিষ্ঠা হয় দৈনিক সমকাল। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি এই পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি লেখালেখিতে সুনাম অর্জন করেছেন। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে ছড়াগ্রন্থ রঙিন বেলুন আশা জাগানিয়া গ্রন্থ। তিনি বেশকিছু প্রবন্ধগ্রন্থ লিখেছেন। প্রবন্ধ সংকলন হচ্ছে সম্পাদকের জবানবন্দি, অমিয় গরল, আমার যত কথা, স্বপ্ন বেঁচে থাক উল্লেখযোগ্য।   

সাংবাদিকতা ছাড়াও তিনি সেন্সর বোর্ডের আপিল বিভাগের সদস্য এবং সম্পাদকদের সংগঠন সম্পাদক পরিষদের সভাপতি/সম্পাদক এছাড়া তিনি একাধিকবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জ্যেষ্ঠ বিভিন্নপদে, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব সুনামের সাথে পালন করেছেন। গোলাম সারওয়ার এর মৃত্যু বাংলাদেশের গণমাধ্যমের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি হল। সংবাদপত্র জগতে তিনি ছিলেন অতি পরিচিত মুখ। তাঁর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।

লেখকঃ কবি, প্রাবন্ধিক ও কলামিস্ট, চুয়াডাঙ্গা