o বিশ্বকাপে পাওয়া সব অর্থই দান করে দিলেন এমবাপ্পে o রাজশাহীতে বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় ককটেল হামলা o চলে গেলেন রিতা ভাদুড়ি, বলিউডে শোকের ছায়া o বাসায় ঢুকে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, ৫ আসামির রিমান্ড o দেশে ছয় মাসে ধর্ষণের শিকার ৫৯২: মহিলা পরিষদ

আজ মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ |

আপনি আছেন : প্রচ্ছদ  >  খাগড়াছড়ি  >  পার্বত্য জেলা পরিষদ হর্টিকালচার পার্কের মাসিক গড় আয় দুই লাখ টাকা

পার্বত্য জেলা পরিষদ হর্টিকালচার পার্কের মাসিক গড় আয় দুই লাখ টাকা

পাবলিশড : ২০১৮-০৩-১৭ ১৬:৪২:৪১ পিএম

।। তাপস ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি ।।

পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি  শহরের কাছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ হর্টিকালচার পার্ক। বর্তমানে সবার পরিচিত এবং আলোচিত একটি পর্যটন কেন্দ্র। প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে পর্যটক এসে ভিড় জমান। স্থাপিত হয় ২০১১সালে আর বিনোদনের জন্য উন্মুক্ত করা হয় ২০১২সালে।

পার্কটি ভবিষ্যৎ সুযোগ সুবিধা, নিরাপত্তা, খাবারের সুবিধা,বিনোদন ইত্যাদি বিষয়  নিয়ে কথা বললে দায়িত্বরত কর্মকর্তা খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিদের সদস্য এবং খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধ্রাণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন বর্তমানে পার্কটির আরও উন্নয়নের কাজ চলছে যাতে পর্যটকরা এখানে এসে আনন্দ পায়। প্রতিদিন শতে শত পর্যটক এসে ঘুরে যায়। যার দরুন সংশ্লিষ্ট সকল কর্মচারী বেতন দেওয়ার পর বর্তমান মাসিক গড় আয় দুই লাখ টাকা ।

নিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন যেহেতু এই পার্কটি শুধু খাগড়াছড়ির জন্য নয় বর্তমানে দেশব্যাপী পরিচিতি লাভ করেছে তাই কর্তৃপক্ষ পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য আগামীতে সার্বক্ষনিক পুলিশ ডিউটিতে রাখার ব্যবস্থা করবে। যাতে পর্যটকরা সকল প্রকার অপকর্ম, হয়রানী, বিভিন্ন খারাপ নেশা থেকে মুক্ত থাকে। সেই সাথে যাতে কেউ অবৈধপ্রবেশ করতে না পারে তার জন্য অচিরেই কর্র্তৃপক্ষ সীমানা প্রাচীর দিতে যাচ্ছে।

খাবার এবং বিনোদন নিয়ে দায়িত্বরত কর্মকর্তা খাবারের ক্ষেত্রে বলেন বর্তমানে বিশেষ করে পানি আমাদের নিজস্ব সাপ্লাই আছে আর  প্রতিটি দোকানেও উন্নতমানের খাবার পাওয়া যায়। ইচ্ছে করলে যে কেউ তাৎক্ষনিক বা অগ্রিম বিভিন্ন খাবারের অর্ডার দিতে পারেন। তাছাড়া দোকানের সংখ্যা আরও বাড়ছে পর্যটকদের আনন্দ বাদেও কেনাকাটার সুবিধার জন্য।

আর বিনোদন যাতে সকল বয়সের পর্যটক উপভোগ করতে পারে তার জন্য কর্তৃপক্ষ কাজ হাতে নিয়েছে। তাছাড়া  পর্যটকদের সুবিধার জন্য কনফারেন্স হল রুম রয়েছে এবং থাকার জন্য গেস্ট হাউস আছে।

আগামীতে সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা, নিরাপত্তা, বিনোদন নিয়ে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে জেলা পরিষদ পার্কটি একটি আধুনিক পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে এই প্রত্যাশা কর্তৃপক্ষের।

খাগড়াছড়ি জেলা একটি দর্শনীয় জেলা হলেও আরও বেশী প্রাধান্য পায় মূলত: সাজেক লুইলুই পর্যটন কেন্দ্র হওয়াতে।আর দ্রুত যোগাযোগ মাধ্যম হচ্ছে খাগড়াছড়ি। তাই পর্যটকদের মূল ঠিকানা হলো খাগড়াছড়ি জেলা সদর। আর সাজেক রুইলুই থেকে ফিরে ঢাকাগামী সকল পর্যটকদের সন্ধ্যা আগ পর্যন্ত ঠিকানা খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ হর্টিকালচার পাক।